মন্দ্রসপ্তক – হুমায়ূন আহমেদ

মন্দ্রসপ্তক – হুমায়ূন আহমেদ

Your rating: 1
4.7 3 votes
what going on?

মন্দ্রসপ্তক pdf বাংলা বই। মন্দ্রসপ্তক – হুমায়ূন আহমেদ এর লেখা একটি বাংলা জনপ্রিয় বই। আমাদের টিম তার “মন্দ্রসপ্তক” বইটি সংগ্রহ করেছে এবং আপনাদের জন্য হুমায়ূন আহমেদ (Humayun Ahmed) এর এই অসাধারণ বইটি শেয়ার করা হয়েছে ।  আপনারা খুব সহজের “মন্দ্রসপ্তক” বইটি পড়ে ফেলতে পারবেন যে কোনো মুহূর্তে।আপনার পছন্দের যে কোনো বই খুব সহজেই পেয়ে যাবেন আমাদের সাইটে । ৮০ পাতার মন্দ্রসপ্তক বইটি ডাউনলোড করতে পারবেন অথবা অনলাইবাংলা বইটি (Bangla Boi) স্ক্যন কোয়ালিটি অসাধারণ। বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৯০ সালে এবং বইটি প্রকাশ করে সময় প্রকাশন।

বইয়ের বিবরণ

  • বইয়ের নামঃ মন্দ্রসপ্তক
  • লেখকঃ হুমায়ূন আহমেদ
  • প্রকাশিতঃ নভেম্বর ১৯৯০  
  • প্রকাশকঃ সময় প্রকাশন
  • সাইজঃ ০৮  এমবি
  • ভাষাঃ বাংলা (Bangla/Bengali)
  • পাতা সংখ্যাঃ ৮০ টি
  • বইয়ের ধরণঃ উপন্যাস
  • ফরম্যাটঃ পিডিএফ (PDF)

মন্দ্রসপ্তক বই রিভিউঃ

হুমায়ূন আহমেদ এর মন্দ্রসপ্তক বাংলা বইটি সম্পুর্ণ ফ্রীতে ডাউনলোড এবং পড়তে পারবেন। আমরা হুমায়ূন আহমেদ এর মন্দ্রসপ্তক বই এর পিডিএফ কপি সংগ্রহ করেছি এবং আপনাদের মাঝে তা শেয়ার করছি।

নিচের লিংক থেকে ০৮  এমবির বইটি ডাউনলোড করে কিংবা অনলাইনে যেকোন সময় হুমায়ূন আহমেদ এর এই জনপ্রিয় উপন্যাস এর বইটি পড়ে নিতে পারবেন।

ডাউনলোড  /  অনলাইনে পড়ুন

নায়ক টুকু’র বর্ননায় তাঁর পরিবারের সবার গল্প উঠে এসেছে। টুকুর একান্নবর্তী পরিবারের সমস্যার শুরু হয় ছোট চাচার দ্বিতীয় বিয়ের মাধ্যমে। আর সেই সমস্যা থেকে কীভাবে বেরিয়ে আসে তারা সেটাই মূলত উঠে এসেছে।
কাপুরুষ স্বভাবের নায়ক টুকু আর তার অদ্ভুত কাজ (হুমায়ূনের বাকি নায়কদের মতোই) হুমায়ূনভক্তদের আকর্ষণ করতে যথেষ্ট। ভালো লেগেছে সন্ন্যাসী ভোলার চরিত্রটিও। তবে এন্ডিং ভালো লাগে নি। সেটা পাঠকদের জন্যই থাক।
নারীবাদী কথা বলি একটু। মায়ের মহান চরিত্র (টুকুর মা) আর মায়ের খারাপ চরিত্র (রিমির মা) এই তুলনা ভালো লেগেছে। তবে একপেশে। টুকু রিমির ভালোবাসা বোঝে না, কিন্তু লরেটোর প্রতি তার টান ভালোবাসায় পরিণত হয়। কমবয়সী মেয়ের প্রতি হুমায়ূনের ভালোবাসা নায়ক চরিত্র টুকুর মধ্য দিয়েই প্রমাণ করেছেন। উচ্চবিত্ত শ্রেণীর নারীরা হন সুন্দর আর কামুক (টুকুর ছোট চাচী) কিন্তু মধ্যবিত্ত শ্রেণীর নারীরা হন ভালো (টুকুর ছোট চাচার দ্বিতীয় স্ত্রী)। পুরুষ চরিত্রগুলো প্রতিটিই জ্ঞানের আধার। টুকুর দুই চাচা, বাবা, এমনকি রিমির সৎ বাবাও। নারীরা সবই কূট আর সন্দেহপ্রবণ।
রিমির সব কিছূ জেনেও সে রিমিকে ভালোবাসতে পারে না। বরং রিমিকে টুকু পাগল বলে মনে করে। কমলার সাথে বড়চাচার সম্পর্ক টুকু স্পষ্ট করে নি, বড়চাচাকে পছন্দ করে বলে।
হুমায়ূন স্যারের লেখা পছন্দ করার কারণ, সবাই পাঠকের মন নিয়ে খেলতে পারেন নি। স্যার আর গুরু (রবীন্দ্রনাথ) পেরেছেন। এখানেই তাদের সার্থকতা।

আশা করছি, হুমায়ূন আহমেদ এর মন্দ্রসপ্তক বইটি পড়ে আপনাদের ভালো লাগবে। হুমায়ূন আহমেদ (Humayun Ahmed) এর অন্যান্য বাংলা বই ডাউনলোড করতে আমাদের সাইট ভিজিট করুন আর মন্দ্রসপ্তক বইটি আপনাদের কেমন লাগলো তা জানতে ভুলবেন না।

Similar titles

রংমহল – সমরেশ মজুমদার
শীর্ষবিন্দু – প্রফুল্ল রায়
দত্তা – শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
নূরলদীনের সারাজীবন – সৈয়দ শামসুল হক
কখনো কাছে কখনো দূরে – আশাপূর্ণা দেবী
সুন্দরবনে সাত বৎসর – বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়
এই মোহ মায়া – সুচিত্রা ভট্টাচার্য
এখানে ওখানে – শংকর
তিন মিতিন – সুচিত্রা ভট্টাচার্য
প্রেম ও প্রয়োজন – আশাপূর্ণা দেবী
সমরেশের সেরা ১০১ – সমরেশ মজুমদার
কনক দীপ – আশাপূর্ণা দেবী

Leave a comment

Name *
Add a display name
Email *
Your email address will not be published
Website