চোখের বালি – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

চোখের বালি – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

Your rating: 10
9.5 2 votes

চোখের বালি pdf বাংলা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর লেখা একটি রোম্যান্টিক উপন্যাস বই। তার “চোখের বালি” বইয়ের একটি পিডিএফ (pdf) ফাইল ই বুক (eBook) আমরা অনলাইনে খুজে পেয়েছি এবং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (Rabindranath Tagore) এর অসাধারণ বইটি আপনাদের মাঝে শেয়ার করছি। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা আরও ছোটগল্প, প্রবন্ধ, কাব্যগ্রন্থ, উপন্যস, আত্মজীবনী,গদ্যসংকলন সহ সকল পিডিএফ বই পাঠের জন্য আমাদের সাইটে চোখ রাখুন। আপনারা যেকোন সময় বইটি আমাদের ওয়েব সাইট থেকে ডাউনলোড করে এবং অনলাইনে পড়তে পারবেন। ২০২ পাতার চোখের বালি বাংলা বইটি (Bangla Boi) একটি অধিক পঠিত রোম্যান্টিক উপন্যাস যা ১৯০২ সালে দি স্কাই পাবলিশার্স প্রথম প্রকাশ করে।

বইয়ের বিবরণ

  • বইয়ের নামঃ চোখের বালি 
  • লেখকঃ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
  • প্রকাশিতঃ ১৯০২ 
  • প্রকাশকঃ দি স্কাই পাবলিশার্স 
  • সাইজঃ ০২ এমবি
  • ভাষাঃ বাংলা (Bangla/Bengali)
  • পাতা সংখ্যাঃ ২০২ টি
  • বইয়ের ধরণঃ উপন্যাস 
  • ফরম্যাটঃ পিডিএফ (PDF)

চোখের বালি বই রিভিউঃ

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর চোখের বালি বাংলা বইটি সম্পুর্ণ ফ্রীতে ডাউনলোড এবং পড়তে পারবেন। আমরা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর চোখের বালি বই এর পিডিএফ কপি সংগ্রহ করেছি এবং আপনাদের মাঝে তা শেয়ার করছি। বিনোদিনী মায়াবিনী ও ঈর্ষাকাতর মহেন্দ্রের সুখের সংসার। মহেন্দ্রকে সে যে দেবতাময় পূজোনীয় স্থানে এনে ফেলেছে এবং মহেন্দ্রের সততা, এবং বিনোদিনীকে তুচ্ছ করে বলেই সে হয়তো মনে মনে মহেন্দ্রকে ভালোবাসে। কিন্তু সেই মহেন্দ্র যখন বিনোদিনীর ছলনায় আকৃষ্ট হয়ে, তার নিপুণ জালে ধরা দেয়, আকাশের উজ্জ্বলতম নক্ষত্রটি যখন ধুপ করে পায়ের সামনে এসে গড়াগড়ি খায়, মহেন্দ্রের আত্ম অহংকারের প্রদীপ তখন নিমিষেই নিঃশ্বেসিত হয়। বিনদিনীর দৃস্টিতে সেই দেবতার জায়গায় যে অধিস্টিত হওয়ার ক্ষমতা রাখে শুধু বেহারী। মহেন্দ্রকে প্রত্যাক্ষান করে আশালতার কাছে ফিরিয়ে দিতে চাওয়া বিনোদিনী ছুটে যায় বেহারীর সন্ধানে। আশার সরলতা,মহেন্দ্রর কপটতা,বিহারীর পবিত্র প্রেম,বিনোদিনীর সংশয় -প্রেম মনস্তাত্ত্বিক বিশ্লেষণে এ বই অনবদ্য।

নিচের লিংক থেকে ০২ এমবির বইটি ডাউনলোড করে কিংবা অনলাইনে যেকোন সময় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর এই জনপ্রিয় রোম্যান্টিক উপন্যাস বইটি পড়ে নিতে পারবেন।

ডাউনলোড  /  অনলাইনে পড়ুন

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন একজন অগ্রণী বাঙালি কবি, ঔপন্যাসিক, সংগীতস্রষ্টা, নাট্যকার, চিত্রকর, ছোটগল্পকার, প্রাবন্ধিক, অভিনেতা, কণ্ঠশিল্পী ও দার্শনিক। তাঁকে বাংলা ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক মনে করা হয়।[৩] রবীন্দ্রনাথকে গুরুদেব, কবিগুরু ও বিশ্বকবি অভিধায় ভূষিত করা হয়। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ৭ই – মে, ১৮৬১ সালে কলকাতার জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তাঁর পিতা ছিলেন ব্রাহ্ম ধর্মগুরু দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং মাতা ছিলেন সারদাসুন্দরী দেবী। রবীন্দ্রনাথের কাব্যসাহিত্যের বৈশিষ্ট্য ভাবগভীরতা, গীতিধর্মিতা চিত্ররূপময়তা, অধ্যাত্মচেতনা, ঐতিহ্যপ্রীতি, প্রকৃতিপ্রেম, মানবপ্রেম, স্বদেশপ্রেম, বিশ্বপ্রেম, রোম্যান্টিক সৌন্দর্যচেতনা, ভাব, ভাষা, ছন্দ ও আঙ্গিকের বৈচিত্র্য, বাস্তবচেতনা ও প্রগতিচেতনা। ১৯১৩ সালে গীতাঞ্জলি কাব্যগ্রন্থের ইংরেজি অনুবাদের জন্য তিনি সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। তাঁর রচিত আমার সোনার বাংলা ও জনগণমন-অধিনায়ক জয় হে গানদুটি যথাক্রমে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ ও ভারতীয় প্রজাতন্ত্রের জাতীয় সংগীত।জীবনের শেষ চার বছর ছিল তাঁর ধারাবাহিক শারীরিক অসুস্থতার সময়। এই সময়পর্বে রচিত রবীন্দ্রনাথের কবিতাগুলি ছিল মৃত্যুচেতনাকে কেন্দ্র করে সৃজিত কিছু অবিস্মরণীয় পংক্তিমালা। দীর্ঘ রোগভোগের পর ১৯৪১ সালের ৭ই আগস্ট জোড়াসাঁকোর বাসভবনেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

আশা করছি, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর চোখের বালি বইটি পড়ে আপনাদের ভালো লাগবে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (Rabindranath Tagore) এর অন্যান্য বাংলা বই ডাউনলোড করতে আমাদের সাইট ভিজিট করুন আর চোখের বালি বইটি আপনাদের কেমন লাগলো তা জানতে ভুলবেন না।

Similar titles

যাবজ্জীবন – মহাশ্বেতা দেবী
তোমাকে – নিমাই ভট্টাচার্য
পরিবর্তনে অপরিবর্তনীয় – সৈয়দ মুজতবা আলী
সীতারাম – বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
মোহিনী মায়া – আশাপূর্ণা দেবী
ছায়াবীথি – হুমায়ূন আহমেদ
ডিটেকটিভ – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
জলদস্যুর কাহিনী – হেমেন্দ্রকুমার রায়
ছোঁবল – নারায়ণ সান্যাল
সুদূর সকাল – বুদ্ধদেব গুহ
ঋভুর শ্রাবণ – বুদ্ধদেব গুহ
অদিতির উপাখ্যান – প্রফুল্ল রায়

Leave a comment

Name *
Add a display name
Email *
Your email address will not be published
Website