কবি – হুমায়ূন আহমেদ

কবি – হুমায়ূন আহমেদ

Your rating: 0
0 0 votes

কবি pdf বাংলা বই। কবি – হুমায়ূন আহমেদ এর লেখা একটি বাংলা জনপ্রিয় বই। আমাদের টিম তার “কবি” বইটি সংগ্রহ করেছি এবং আপনাদের জন্য হুমায়ূন আহমেদ (Humayun Ahmed) এর অসাধারণ এই অসাধারণ বইটি শেয়ার করছি  আপনারা খুব সহজের “কবি” বইটি ডাউনলোড করতে পারবেন অথবা অনলাইনেই পড়ে ফেলতে পারবেন যে কোনো মুহূর্তে।আপনার পছন্দের যে কোনো বই খুব সহজেই পেয়ে যাবেন আমাদের সাইটে । ২২৭ পাতার কবি বাংলা বইটি (Bangla Boi) স্ক্যন কোয়ালিটি অসাধারণ। বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৯৬ সালে এবং বইটি প্রকাশ করে কাকোলী প্রকাশনী।

বইয়ের বিবরণ

  • বইয়ের নামঃ কবি
  • লেখকঃ হুমায়ূন আহমেদ
  • প্রকাশিতঃ জুন ১৯৯৬
  • প্রকাশকঃ কাকোলী প্রকাশনী
  • সাইজঃ ০৭ এমবি
  • ভাষাঃ বাংলা (Bangla/Bengali)
  • পাতা সংখ্যাঃ ২২৭ টি
  • বইয়ের ধরণঃ উপন্যাস
  • ফরম্যাটঃ পিডিএফ (PDF)

কবি বই রিভিউঃ

হুমায়ূন আহমেদ এর কবি বাংলা বইটি সম্পুর্ণ ফ্রীতে ডাউনলোড এবং পড়তে পারবেন। আমরা হুমায়ূন আহমেদ এর কবি বই এর পিডিএফ কপি সংগ্রহ করেছি এবং আপনাদের মাঝে তা শেয়ার করছি।

সিলেটের মীরাবাজারের পুরানো শ্যাওলা ধরা দালানের একটা ঘর। মধ্যরাত্রি। পাঁচ-ছ’ বছর বয়েসী একটি শিশু বাবা-মা’র পাশে ঘুমুচ্ছে। বাইরে উথাল পাথাল জোছনা। সেই জোছনা বাড়ির ভেন্টিলেটর দিয়ে ঘরে ঢুকেছে, পড়েছে শিশুটির মশারির ছাদে। মনে হচ্ছে আলোর ফুল ফুটে আছে। হঠাৎ শিশুটির ঘুম ভেঙে গেল। সে বিস্ময় এবং ভয় নিয়ে তাকিয়ে রইল জোছনার ফুরের দিকে। এক সময় বাবাকে ডেকে তুলে কাঁদো কাঁদো গলায় বলল, “এটা কি?” শিশুর বাবা ফুলের রহস্য ব্যাখ্যা করলেন-“ভেন্টিলেটারের ফুলের নকশাকাটা। জোচনা ভেন্টিলেটার দিয়ে ঢুকেছে বলেই ফুল হয়ে মশারির ছাদে পড়েছে। ভয়ের কিচ্ছু নেই।” শিশুর ভয় তারপরেও যায় না। তখন বাবা বললেন, “হাত দিয়ে ফুলটা ধর, ভয় কেটে যাবে।” শিশুটি সেই ফুল হাত দিয়ে ধরতে গেল। যতবারই ধরতে যায় ততবারই ফুল হাত গলে বের হয়ে যায়। কবি-জোছনার ফুল ধরার গল্প। মহান বোধকে স্পর্শ করার আকাংক্ষার গল্প। জীবনকে দেখা এবং না দেখার গল্প

নিচের লিংক থেকে ০৭ এমবির বইটি ডাউনলোড করে কিংবা অনলাইনে যেকোন সময় হুমায়ূন আহমেদ এর এই জনপ্রিয় উপন্যাস বইটি পড়ে নিতে পারবেন।

ডাউনলোড  /  অনলাইনে পড়ুন

হুমায়ূন আহমেদের ‘কবি’ আমার জন্য কেবল একটি বই না, অনেক অনুভূতির আধার বলা যায়। আমার ভালোলাগার মেয়েটা রীতিমত নীতু র মতন তাই হয়তো! বইটিতে ব্যবহার করা প্রতিটি কবিতা হুমায়ূন আহমেদের নিজের লেখা, প্রতিটিই অসাধারণ। কবিতা যাদের বুকে সামান্য হলেও কাঁপুনি তোলে তাদের জন্য অবশ্যপাঠ্য!

আতাহার, সাজ্জাদ, মজিদ, জায়েদা, নীতু, হোসেন সাহেব মোসাদ্দেক, কণা, গণি, মিলি সহ আরো অনেকগুলো মানুষের জীবনের খুব সূক্ষ্ম কিছু পাওয়া না পাওয়ার উপাখ্যান এই বইটি। আপাতদৃষ্টিতে যাদের খুব পুর্ণ বলে মনে হয় তাদের জীবনেও অনেক অপূর্ণতা থেকে যায়, যাদের সফল বলে মনে হয় জীবনভর তারাও হয়ত কোন না কোন ব্যর্থতার গ্লানি বয়ে বেড়ায়। এই অনুভূতিগুলোর সংগায়ন বেশ একেকজনের কাছে একেকরকম।আমার পক্ষে এই আবেগের নামকরণ করা অসম্ভব। তবে গুণবাবুর কবিতার মত করে বলা যায়, ”যে আবেগের নাম আজও স্থির করে উঠতে পারেনি মানুষ, আর সুনির্দিষ্ট কোন নাম না থাকার জন্যই যে আবেগের রহস্য কখনো ঘুচবার নয়; অর্থাৎ কোন অনির্দিষ্টকে ধরবার ক্ষেত্রে কোন সুনির্দিষ্ট শব্দ যেখানে সবচেয়ে বেশিবার ব্যর্থ হয়…” এমনি কোন অদেখা আবেগের বহিঃপ্রকাশ কবি।

আশা করছি, হুমায়ূন আহমেদ এর কবি বইটি পড়ে আপনাদের ভালো লাগবে। হুমায়ূন আহমেদ (Humayun Ahmed) এর অন্যান্য বাংলা বই ডাউনলোড করতে আমাদের সাইট ভিজিট করুন আর কবি বইটি আপনাদের কেমন লাগলো তা জানতে ভুলবেন না।

Similar titles

অমানুষ – হুমায়ূন আহমেদ
মহাভারতের কথা – উপেন্দ্রকিশোর রায় চৌধুরী
ছোট্ট পমির আভিযান – হেমেন্দ্রকুমার রায়
গোগোল অমনিবাস – সমরেশ বসু
মণি বৌদি – তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
পঞ্চকন্যা – হুমায়ূন আহমেদ
গজমুক্তা – নারায়ণ সান্যাল
চাতক জল – কাবেরী রায়চৌধুরী
কণ্ঠে পারিপার্শ্বিকের মালা – সমরেশ মজুমদার
কার্ভালোর বাক্স – সমরেশ মজুমদার
আনন্দ বেদনার কাব্য – হুমায়ূন আহমেদ
মতিচূর – বেগম রোকেয়া

Leave a comment

Name *
Add a display name
Email *
Your email address will not be published
Website